Home / জাতীয় / প্রধানমন্ত্রী সৌদি আরব সফরে যাচ্ছেন

প্রধানমন্ত্রী সৌদি আরব সফরে যাচ্ছেন

বিশেষ প্রতিনিধি :: অর্থনৈতিক ও সামরিক সহযোগিতা আরও জোরদারের প্রত্যাশা নিয়ে এই সপ্তাহে সৌদি আরব যাচ্ছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। তিন বছরের মধ্যে চতুর্থ সফরে আগামী ১৭ অক্টোবর তিনি সৌদি বাদশা সালমান বিন আব্দুল আজিজ আল সৌদের সঙ্গে সাক্ষাৎ করবেন। এছাড়া, সৌদি যুবরাজ মোহাম্মেদ বিন সালমান বিন আব্দুলআজিজ আল সৌদের সঙ্গেও তার  সাক্ষাতের কথা রয়েছে। সরকারের একজন সিনিয়র কর্মকর্তা এই তথ্য নিশ্চিত করেছেন।

 

সরকারের এই কর্মকর্তা বলেন, ‘এই সফরটি অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ। কারণ এর মাধ্যমে দুই দেশের রাজনৈতিক সম্পর্ক আরও দৃঢ় হবে।’ তিনি আরও বলেন, ‘এই সফরে ঢাকা ব্যবসা, বাণিজ্য, সামরিক সহযোগিতা, শ্রম সংস্থানসহ অন্যান্য ক্ষেত্রে আরও জোরদার দ্বিপক্ষীয় সম্পর্ক তৈরি করতে চায়। কারণে এসব বিষয়ে সৌদিদের আগ্রহ আছে। বিনিয়োগের জন্য বাংলাদেশ একটি লাভজনক দেশে পরিণত হয়েছে এবং আমরা এই সফরের পরে দুই দেশের সম্পর্কে একটি গুণগত পরিবর্তন দেখতে পাবো বলে আশা করি।’

 

সরকারে এই কর্মকর্তা বলেন, ‘এই সফরে প্রধানমন্ত্রী প্রায় ৩০জন প্রধান সৌদি ব্যবসায়ীর সঙ্গে সাক্ষাৎ করবেন, যাদের বিদ্যুৎ, জ্বালানি, পেপার মিলসহ অন্যান্য ক্ষেত্রে আগ্রহ আছে।’ এই  সফরে দুই দেশের বেসরকারি খাতের মধ্যে চার থেকে পাচঁটি সমঝোতা স্মারকেরও সম্ভাবনা আছে বলেও তিনি জানান।

 

এই কর্মকর্তা আরও বলেন, ‘চট্টগ্রামে একটি অর্থনৈতিক অঞ্চলে বিনিয়োগের জন্য আমরা সৌদি বেসরকারি খাতের সঙ্গে আলোচনা করছি। এই অর্থনৈতিক অঞ্চল শুধু সৌদি বিনিয়োগের জন্য উন্মুক্ত থাকবে।’

 

অন্য একজন কর্মকর্তা বলেন, ‘এই সফরে দ্বিপক্ষীয় সামরিক সহযোগিতা সমঝোতা স্মারক স্বাক্ষরের সম্ভাবনা আছে।’ তিনি বলেন, ‘যদি এই চুক্তি স্বাক্ষরিত হয়, তবে তা দুই দেশের জন্য লাভজনক হবে।’

 

জানা গেছে,  রোহিঙ্গা সমস্যা সমাধানের জন্য সৌদি আরবের সহযোগিতা চাইবে বাংলাদেশ। এছাড়া, রিয়াদে নব নির্মিত বাংলাদেশ চ্যান্সেরি ভবনও এই সফরে উদ্বোধন করবেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

 

প্রসঙ্গত, প্রধানমন্ত্রী ১৬ অক্টোবর রওয়ানা হয়ে ১৯ অক্টোবর ঢাকায় ফেরত আসবেন।

 

২০১৬ সালে প্রধানমন্ত্রী দ্বিপক্ষীয় সফরে সৌদি আরব সফর করেন। পরের বছর আরব ইসলামিক-আমেরিকান শীর্ষ সম্মেলনে যোগ দেওয়ার জন্য তিনি রিয়াদ যান। ২০১৮ সালে গাল্ফ শিল্ড-১ নামে যৌথ সামরিক মহড়ার সমাপনী অনুষ্ঠানে অংশ নেওয়ার জন্য তিনি দাম্মাম সফর করেন।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *